বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয় বাংলাদেশ
(বাংলাদেশ কওমী মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড)
কাজলা (ভাঙ্গাপ্রেস), দনিয়া, যাত্রাবাড়ী, ঢাকা-১২৩৬
(পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ বিভাগ)

 

৩৯তম কেন্দ্রীয় পরীক্ষা ১৪৩৭ হি: / ১৪২৩ বাং / ২০১৬ ঈ:
নেগরাণ প্রস্তার আহ্বানপত্র
আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহু
মোহতারম মোহতামেম সাহেব, (দা. বা.)
বা’দ তাসলীম, আশা করি খায়র ও আফিয়াতে আছেন। ৩৯তম মারকাযী ইমতিহানের কাজ শুরু হয়েছে। পূর্বের ন্যায়
আপনাদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি। প্রতিটি তাকমীল মাদরাসা হতে তাকমীল স্তরের মারকাযে প্রধান নেগরাণের দায়িত্ব পালনে যোগ্য একজন নেগরাণ অবশ্যই দিবেন। সূতরাং আপনার মাদরাসা হতে মাদরাসার মারহালা ও অবস্থান ভেদে ২/৩/৪/৫/৬/৭/ জন নেগরাণের নাম এবং জেনারেল শিক্ষিত একজন মাস্টারের (যিনি লেবাস পোশাকে সুন্নাতের পাবন্দ হবেন) নামসহ (আবেদন প্রস্তাব) তাঁদের সম্মতি সহকারে পাঠাবেন। উল্লেখ্য, ইমতিহান ১১/১২ ‍দিন হবে বিধায় প্রায় ১৩/১৪ দিন সময় দিতে হবে। এ সময়ের জন্য নিজেকে পরিপূর্ণভাবে ফারেগ করে দিতে হবে।
এতদসংগে নেগরাণদের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার বিয়য়টিও উল্লেখ করা হল।
(ক)
নেগরাণে আ’লা (প্রধান পরিচালক)-তাকমীল স্তরের মারকাযের জন্য :
যোগ্যতা : তাকমীল স্তরের গুরুত্বপূর্ণ কিতাবের উস্তায হতে হবে।
অভিজ্ঞতা : অন্তত ৫ বছরের শিক্ষকতা, কিতাবী বিষয়াদিতে দক্ষতা এবং প্রশ্নের ভাষা ও ধরণ-প্রকরণ সম্পর্কে পরিচ্ছন্ন ধারনার অধিকারী হতে হবে। ৩(তিন) বছরের নেগরাণীর বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
চারিত্রিক গুণাবলী : অমায়িক ও সদালাপী হতে হবে। শৃঙ্খলাবোধ, নীতির প্রশ্নে অনমনীয়তা, পরিচালনা দক্ষতা, সমঝোতা ও সকলকে নিয়ে কাজ করার মন-মানসিকতা, উদ্ভূত সমস্যার ত্বড়িত সমাধানের যোগ্যতা, সর্বোপরি আমানতদারী ও সুচারুরূপে কর্ম সম্পাদনে অভিজ্ঞ হতে হবে। কর্মে উদ্যম ও স্বতঃষ্ফূর্ততা এবং স্বভাবজাত পারদর্শিতা ও সতর্কতা থাকতে হবে।
(খ)
নেগরাণে আ’লা (প্রধান পরিচালক)-তাকমীলের নিম্নস্তরের মারকাযের জন্য :
যোগ্যতা : তাকমীল উত্তীর্ণ হতে হবে। তাকমীল স্তরের সাধারণ কিতাব/ফযীলত স্তর পর্যন্ত বিশেষ কিতা্বের উস্তায হতে হবে।
অভিজ্ঞতা ও চারিত্রিক গুণাবলী : (ক)-এর অনুরূপ।
(গ)
সহকারী নেগরাণ (সহকারী পরীচালক) :
যোগ্যতা-অভিজ্ঞাতা : তাকমীল/ফযীলাত/সম স্তরের উস্তায হতে হবে। অন্তত ২ বছরের শিক্ষকতা এবং বেফাকের পরীক্ষা সম্পর্কে পূর্ব ধারণা ও অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
চারিত্রিক গুণা্বলী : অমায়িক ও সদালাপী হতে হরে। সম্মিলিতরূপে সহযোগিতার মনোবাব নিয়ে কাজ করার মনসিকতা থাকতে হবে। উদ্যমী, পরিশ্রমী ও স্বতঃস্ফূর্ত হতে হবে। যথাসময়ে কর্ম সম্পাদনে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হতে হবে। সর্বোপরি আমানতদারী এবং মান্যতা প্রধান গুণরূপে বিবেচিত হবে।
*
মোহতামেম সাহেব উল্লেখিত যোগ্যতা-অভিজ্ঞতার মানদন্ডে নেগরাণ হিসাবে তালিকাভূক্তির প্রস্তাব প্রদানে যত্নবান হবেন এবং এ ধরণের যোগ্যদের ব্যক্তিগত আবেদন ফরম (ইতোপূর্বে্ পূরণ না করে থাকলে) পূরণ করে পাঠাবার ব্যবস্থা করবেন।
*
প্রস্তাবিত নেগরাণ তলিকা ৩০শে সফর-এর আগেই পাঠিয়ে দিতে হবে। নির্ধারিত সময়ের পরে আগত প্রস্তাব বিবেচনা করা সম্ভব নয়।
*
নেগরাণ হিসাবে নিয়োগ প্রাপ্তির জন্য বেফাক কর্তৃক পরিচালিত নেগরাণ প্রশিক্ষনে অংশগ্রহণ আবশ্যিক বিষয়রূপে বিবেচিত হবে।
   
মাওলানা মুফতী আবূ ইউসুফ  
-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক